রূপগঞ্জ, নারায়নগঞ্জ ১০:৩৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১০ নভেম্বরের মধ্যে ইন্টারনেটের দাম কমানোর নির্দেশ

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত : ০২:০২:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩
  • ১৬৬ বার দেখা হয়েছে

১০ নভেম্বরের মধ্যে সব মোবাইল অপারেটরকে ইন্টারনেট প্যাকেজের দাম কমানোর জোরালো নির্দেশ দিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের প্রশাসনিক এলাকায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির প্রধান কার্যালয়ে দেশের মোবাইল অপারেটরগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের সঙ্গে বৈঠকে মন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। এসময় বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, কমিশনের কমিশনার-সহ পদস্থ কর্মকর্তা ও মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে ইন্টারনেটের দাম এভাবে বাড়ানোটা সরকারবিরোধী কাজ এবং চক্রান্ত।

মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলোর প্রতিনিধিদের উদ্দেশে মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশে ব্যবসা করতে হলে দেশের জনগণের পক্ষে থাকতে হবে। রেগুলেটর হয়েও বিটিআরসি ফ্যাসিলিটেটরের ভূমিকা পালন করছে। তারপরও আপনারা যে আচরণ করছেন, তা জনগণ মেনে নেবে না। আপনারা ডাটা বিক্রি করবেন। কিন্তু সময় (মেয়াদ) নয়।

বৈঠকের পর মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে বলেন, ৮ নভেম্বরের মধ্যে টেলিটক এবং ১০ নভেম্বরের মধ্যে অন্য সব অপারেটরকে বৈঠকের নির্দেশনা প্রতিপালন করতে হবে। আশা করি, অপারেটরদের বোধদয় হবে। তারা ৯৫টি প্যাকেজকে ৪০টিতে নামিয়ে আনার ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের দাম বাড়াবে না। তখন ইন্টারনেটের দাম কমাবে।

এর আগে মোবাইল অপারেটরদের আপত্তি সত্ত্বেও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৫ অক্টোবর থেকে তিন ও ১৫ দিনের মেয়াদের প্যাকগুলোর মেয়াদ পরিবর্তন করে সাত ও ৩০ দিন করা হয়। বিটিআরসির নির্দেশনা মোতাবেক মেয়াদ বৃদ্ধি হলেও এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় সব অপারেটর পরিবর্তিত মেয়াদের প্যাকগুলোর দাম বাড়িয়েছে। একই সঙ্গে শতভাগ পর্যন্ত বাড়িয়েছে পূর্ববর্তী অন্যান্য প্যাকের দামও।

ট্যাগ :
জনপ্রিয় সংবাদ

১০ নভেম্বরের মধ্যে ইন্টারনেটের দাম কমানোর নির্দেশ

প্রকাশিত : ০২:০২:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩

১০ নভেম্বরের মধ্যে সব মোবাইল অপারেটরকে ইন্টারনেট প্যাকেজের দাম কমানোর জোরালো নির্দেশ দিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের প্রশাসনিক এলাকায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির প্রধান কার্যালয়ে দেশের মোবাইল অপারেটরগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের সঙ্গে বৈঠকে মন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। এসময় বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, কমিশনের কমিশনার-সহ পদস্থ কর্মকর্তা ও মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে ইন্টারনেটের দাম এভাবে বাড়ানোটা সরকারবিরোধী কাজ এবং চক্রান্ত।

মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলোর প্রতিনিধিদের উদ্দেশে মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশে ব্যবসা করতে হলে দেশের জনগণের পক্ষে থাকতে হবে। রেগুলেটর হয়েও বিটিআরসি ফ্যাসিলিটেটরের ভূমিকা পালন করছে। তারপরও আপনারা যে আচরণ করছেন, তা জনগণ মেনে নেবে না। আপনারা ডাটা বিক্রি করবেন। কিন্তু সময় (মেয়াদ) নয়।

বৈঠকের পর মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে বলেন, ৮ নভেম্বরের মধ্যে টেলিটক এবং ১০ নভেম্বরের মধ্যে অন্য সব অপারেটরকে বৈঠকের নির্দেশনা প্রতিপালন করতে হবে। আশা করি, অপারেটরদের বোধদয় হবে। তারা ৯৫টি প্যাকেজকে ৪০টিতে নামিয়ে আনার ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের দাম বাড়াবে না। তখন ইন্টারনেটের দাম কমাবে।

এর আগে মোবাইল অপারেটরদের আপত্তি সত্ত্বেও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৫ অক্টোবর থেকে তিন ও ১৫ দিনের মেয়াদের প্যাকগুলোর মেয়াদ পরিবর্তন করে সাত ও ৩০ দিন করা হয়। বিটিআরসির নির্দেশনা মোতাবেক মেয়াদ বৃদ্ধি হলেও এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় সব অপারেটর পরিবর্তিত মেয়াদের প্যাকগুলোর দাম বাড়িয়েছে। একই সঙ্গে শতভাগ পর্যন্ত বাড়িয়েছে পূর্ববর্তী অন্যান্য প্যাকের দামও।